Go To Page: 1 | 2 | 3 | 4 | 5

{jcomments on} সবাইকে ঈদ মোবারক :)

By sHuvo WhtЄvR

"রমজানের ঐ রোজার শেষে এল খুশির ঈদ" - সবাইকে ঈদ মোবারক :)

আজকে ঈদের এই পবিত্র দিনে রক্তদানে মানুষের আগ্রহ দেখে আমি অভিভুত। অনেকেই আগে থেকেই আমার সাথে যোগাযোগ করেছেন যেন আজকে রক্তের দরকার পরলেই উনাদের জানাই। দিন সত্যি পাল্টাচ্ছে, মানুষ রক্তদানে নিজের দায়িত্ববোধ থেকে এগিয়ে আসছেন :)

-------
আজকের এই পবিত্র দিনে মুমূর্ষু রোগীকে বাঁচাতে যারা রক্তদান করতে ইচ্ছুক, আমাকে জানিয়ে দিন :) আপনার এলাকায় আপনার রক্তের গ্রুপের রক্ত দরকার পরলে আমি আপনাকে কল করে জানিয়ে দিবো :)
-------

"প্রতিটি উৎসবই হোক মানবতার কল্যাণে... "

Facebook Link

{jcomments on} ঈদের ছুটিতে রক্তদাতারা কমে যাচ্ছে দিনকে দিন...

By sHuvo WhtЄvR

ঈদের ছুটিতে সবাই বাড়িতে যাচ্ছেন... বিভাগীয় শহরগুলো ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে... কিন্তু রোগীরা চিকিৎসার জন্য বিভাগীয় শহরে (বিশেষ করে ঢাকায়) রয়ে গেছে, এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য আরও অনেক রোগী নতুন ভর্তি হচ্ছেন... রক্তের চাহিদা কিন্তু সমানই রইল, কিন্তু রক্তদাতারা কমে যাচ্ছে দিনকে দিন...

তাই বিভাগীয় শহরগুলোতে যারা ঈদ করছেন, তাদের সাহায্যের উপর রোগীর ভবিষ্যৎ অনেকাংশে নির্ভর করছে... আপনারা কষ্ট করে হলেও মুমূর্ষু রোগীর পাশে থাকুন এই কিছুদিন... রক্তদান করুন... আপনার ১ব্যাগ রক্ত সত্যিকার অর্থেই জীবন-মৃত্যুর পার্থক্য তৈরি করে দিবে...

এখনি রক্তের প্রয়োজনে রক্তদাতা পাওয়া যাচ্ছে না... আগামী কিছুদিন কি হবে ভাবতেই ভয় হচ্ছে... যে যার নিজের অবস্থান থেকে মুমূর্ষু রোগীকে সাহায্য করুন...আপনার এলাকায় রক্তের প্রয়োজনে পরিচিত মানুষদের মাঝে খোঁজ খবর নিন...

হ্যাপি ব্লাড ডোনেটিং...

Facebook Link

{jcomments on} এই মোটর সাইকেলের মালিককে হাজারো স্যালুট...

By sHuvo WhtЄvR

আমাদের দেশেও আমরা এমন কিছু করতে পারি... অন্তত দুর্লভ রক্ত গ্রুপের রক্তদাতারা যদি এমন করেন তাহলে সমাজ অনেকটাই উপকৃত হবে :)

Facebook Link

{jcomments on}জীবন মূল্যহীন নয় :)

By sHuvo WhtЄvR

যখন জীবনে বিষণ্ণতা গ্রাস করবে, যখন মনে হবে নিজের জীবনের কোন মানে নেই, কোন মূল্য নেই... রক্তদান করে ফেলবেন... রক্তদানের অনুভূতিই জীবন সম্পর্কে আপনার ধারনা পাল্টে দিবে... :)

জীবন বৃথা না, মূল্যহীন না - কারন আপনার রক্তেই মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে ফিরছে অনেক মুমূর্ষু রোগী :)

Facebook Link 1 | Facebook Link 2 | Facebook Link 3

{jcomments on}আপুটি সত্যি আবার কাঁদলেন, তবে খুশিতে :)

By sHuvo WhtЄvR

গতকাল পরিচয় হয় Yeaqut Nasrin Ananya আপুর সাথে... উনার আব্বুর জন্য এ+ রক্তের দরকার ছিল...

আপুটি রিকশায় বসে বসে বিভিন্ন মানুষকে কল করছিল আর কাঁদছিল... রক্তদাতা খুঁজছিলেন...

রিকশা থেকে নামার সময় বৃদ্ধ রিকশাওয়ালা চাচা উনাকে বললেন
"মা আপনি এখন বাবার চিন্তায় কাঁদছেন, রাতেও কাঁদবেন - তবে খুশিতে! আমরা মানুষগুলা এখনও এত খারাপ হই নাই... দেইখেন, মানুষ ছুইটা আইসা রক্ত দিবো আপনার বাবারে..."

এবং রাতে আমাদের প্রচেষ্টায় প্রয়োজনীয় ৩ ব্যাগ রক্ত ম্যানেজ হয়ে গিয়েছিল... একজন অতিরিক্ত রক্তদাতাও পাওয়া গিয়েছিল...

আপুটি সত্যি আবার কাঁদলেন, তবে খুশিতে :)
 
Facebook Link

{jcomments on}রোজায় রক্তদান...

By sHuvo WhtЄvR

"আমার প্রিয় রোগী ভাই ও বোনরা,

আগামী ১ মাস কোন রকমে হলেও বেঁচে থাকুন... কষ্ট করে হলেও নিঃশ্বাস নিতে থাকুন... দাঁত কামড়ে হলেও পৃথিবীটা আঁকড়ে ধরে রাখুন... কারন আগামী এক মাস আপনাদের ভাগ্যে কি দিন অপেক্ষা করছে আমি জানি... গত বছরের অভিজ্ঞতা থেকেই বলছি... একজন মানুষের জীবনের মূল্য হয়ে যায় অনেকটাই অবহেলিত... "

----------------------------------

একজন রক্তদাতার পক্ষে রোজা রেখে রক্তদান করা অনেক কষ্টের... কারন স্পষ্ট... তবে তার থেকেও বড় ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায় "রক্তদান করলে নাকি রোজা ভেঙ্গে যাবে"...

কিন্তু ধর্মীয় দৃষ্টিকোন থেকে রক্তদানে কোন বাধা নেই... যেখানে একজন মানুষের জীবন বাঁচানোর সাথে সম্পর্কিত রয়েছে রক্তদান, সেখানে ধর্মীয় কোন বাধা থাকারও কথা না... এটা হচ্ছে কমন সেন্স...

অনেকেই মনে করেন রোজা রেখে রক্তদান করলে রোজা নষ্ট হয়ে যায়... আসলে এতে রোজার কোন ক্ষতি হয় না…রোজার সময় রক্তদান সম্পর্কে বায়তুল মোকাররম মসজিদের পেশ ঈমাম সাহেব “হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী” বলেছেনঃ

“পবিত্র কোরআন শরিফে বলা হয়েছে ‘যে ব্যাক্তি একজন মানুষের জীবন রক্ষা করল, সে যেন সমগ্র মানব জাতির জীবন রক্ষা করল” ( সূরা মায়েদাঃ ৩২)’... তাহলে এই আয়াত থেকে বুঝা যাচ্ছে যে আপনি যদি আপনার রক্তদানের মাধ্যমে কোন মানুষের জীবন রক্ষা করেন, তাহলে যেন পুরো মানব সমাজকে রক্ষা করলেন... আল্লাহ্‌ পাক যেন আমাদের রক্তদানের মাধ্যমে মানুষের খেদমত করার তউফিক দান করুন... বিশেষ করে রোজাদার ব্যাক্তির মনের মধ্যে এই সন্দেহ না থাকা উচিত যে রক্তদান করলেই রোজা ভেঙ্গে যাবে... আপনি রোজা অবস্থায় রক্ত দিলে রোজা ভাঙবে না, বরং রোজার সওয়াবও পাবেন; এবং রক্তদানের ত্যাগের মাধ্যমে যে একজন মানুষের জীবন বাঁচালেন, এর সওয়াবও পাবেন... শুধুমাত্র আপনাকে ডাক্তার যদি বলে আপনি অসুস্থ, রক্ত দেয়া যাবে না, সেই অবস্থা ছাড়া রোজা রেখেও রক্তদান করা যাবে...”

উপরোক্ত কথাতেও যদি আপনি কনভিন্সড না হয়ে থাকেন, তাহলে "রোজায় রক্তদান" এটা লিখে Google এ সার্চ দিন... শত শত রেফারেন্স পাবেন... যাচাই করে নিন...

এবং তারপরেও যদি আপনি বিশ্বাস করেন যে, রক্তদান করলে রোজা ভেঙ্গে যায়, তাহলে ৩০ রোজার মাঝে ১ টা রোজা না হয় ভেঙ্গেই গেল, তারপরও তো একজন মানুষকে বাঁচাতে পারলেন... এবং একজন মানুষ বাঁচানোর ফলে আপনার কিছুটা হলেও সওয়াবই হবে, এটা আশা করি বুঝতে পারছেন :)

----------------------------------

তবে রোগীকে একবার জিজ্ঞেস করে নিবেন সন্ধ্যায় ইফতারের পর রক্তদান করলে হবে কিনা... যদি খুব বেশি জরুরি না হয়, তাহলে ইফতারের পরে রক্তদান করবেন :)

হ্যাপি ব্লাড ডোনেটিং...

রেফারেন্স লিঙ্ক

Facebook Link

{jcomments on}"দুঃসাহসী ডোনার" কারা?

By sHuvo WhtЄvR

যে রক্তদাতা মুমূর্ষু রোগীর রক্তের প্রয়োজনে দেশের যেকোন প্রান্তে যেতে প্রস্তুত, হোক না সেটা বাসা থেকে ১০ মাইল দূরে, কিংবা ১০০০ মাইল দূরে, রক্তের প্রয়োজনে এই রক্তদাতা সেখানেই ছুটে যেতে প্রস্তুত... এক জেলা থেকে আরেক জেলায়, চেনা - অচেনা যেকোন প্রান্তে, দুঃসাহসী মনোবল এবং ইচ্ছায়...  কোন দূরত্বই দমিয়ে রাখতে পারে না এমন রক্তদাতাদের... মুমূর্ষু রোগীর জীবন বাঁচানোর ইচ্ছা শক্তির কাছে কোন দূরত্বই আসলে দূরত্ব নয় এমন “দুঃসাহসী ডোনার”দের জন্য :)

আমার পরিচিত "সুপার ডোনার"দের লিস্ট কমেন্টে দিলাম... আজ "দুঃসাহসী ডোনার"দের লিস্ট করতে চাই... কেউ আছেন? :)

==================
“দুঃসাহসী ডোনার”দের লিস্ট :)

১) রাসেল আহমেদ (এবি নেগেটিভ - হবিগঞ্জ - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
২) Rong Donu (এবি নেগেটিভ - চট্টগ্রাম - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
৩) কুষ্টিয়ান ধুলাবালি (এবি পজেটিভ - কুষ্টিয়া/ঢাকা - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
৪) Poth Vola Rojib (এবি পজেটিভ - কুষ্টিয়া - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
৫) Tristan Shakil Arafat (এ পজেটিভ - ঢাকা - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
৬) Emtiaz Rahman (ও নেগেটিভ - সাভার, ঢাকা - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
৭) Mynul Kabir Kiron (এ পজেটিভ - ঢাকা - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
8) @Himel Maruf (এ নেগেটিভ - ঢাকা - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
৯) Amicable Mehedi Hasan (বি পজেটিভ - জয়পুরহাট - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
১০) @Deep Zubair (এবি পজেটিভ - শেরপুর - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
১১) Jahangir Hossain Babu (ও নেগেটিভ - চট্টগ্রাম - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)
১২) Anwar Palash (ও পজেটিভ - চট্টগ্রাম - প্রয়োজনে সারা বাংলাদেশ)

Facebook Link

{jcomments on}ধূমপায়ী ব্যাক্তি কি রক্তদান করতে পারবেন...???

By sHuvo WhtЄvR

ধূমপানে বিষপান... এটা আমরা সবাই জানি... এ ব্যাপারে সারা পৃথিবী জুড়েই সচেতনতা সৃষ্টি করছে বিভিন্ন অরগানাইজেশন... তবে আমি ফেরত যাচ্ছি রক্তদানের সম্পর্কে...

ধূমপানে নিকোটিন সেবনের মাধ্যমে ফুসফুস বিশেষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়... তবে সুখের খবর হল, এই সেবনকৃত নিকোটিনের খুব ক্ষুদ্র অংশ রক্তে মিশে... যার পরিমান অতি নগণ্য বলা যায়...

কোষে নিকোটিনের পরিমান মাইক্রোগ্রামে থাকে, কিন্তু রক্তে তা ন্যানো গ্রামে...যা টিস্যুর চেয়ে হাজার গুন কম...

সুতরাং ধূমপায়ী ব্যাক্তি নিঃসংকোচে রক্তদান করতে পারবেন... :)

তবে নিজের শারীরিক সুস্থতার জন্য রক্তদানের পরপরই ধূমপান না করাই ভাল বলে আমি মনে করি...

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ- ধূমপান মৃত্যু ঘটায়...

Facebook Link 1 | Facebook Link 2

{jcomments on}রক্তদাতা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো...

By sHuvo WhtЄvR

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এর লাখো ভক্ত রয়েছে... তবে আজকে থেকে আমিও তার ভক্ত... খেলোয়াড় রোনালদোর কথা বলছি না... একজন মানুষ রোনালদোর কথা বলছি...  

বেশির ভাগ তারকা প্লেয়ারদের খেয়াল করলে আমরা দেখতে পারবো তাদের শরীরে রয়েছে বিভিন্ন আঁকিঝুকি... মানে ট্যাটু (tattoo) করা...  বিশেষ করে কোন ট্রফি জেতার পর বা জরুরী ম্যাচ জেতার পর অনেক প্লেয়ারই এই জয় ট্যাটু আঁকার মাধ্যমে উদযাপন করেন...

কিন্তু খেয়াল করেছেন কিনা জানি না, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর শরীরে একটিও ট্যাটু নেই...
তার ভাষায় "I don’t have tattoos because I donate blood very often" :)

(কারন ট্যাটু করার পর ১ বছর রক্তদান করা যায় না)

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নিয়মিত রক্তদান করেন... শুধু তাই না, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো মুমূর্ষু রোগীকে "বোন ম্যারো"ও দান করেছেন... :)

তিনি শুধুমাত্র একজন ভাল খেলোয়াড় না, একজন ভাল মানুষ... পৃথিবীতে ভাল মানুষ হয়ে বেচে থাকাই সবচেয়ে বড় সার্থকতা :)

স্যালুট ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো...

Source: Yahoo Sports

Facebook Link

{jcomments on}নাবালক থেকে সাবালক বা পুরুষ হবার পরীক্ষা? ...

By Tanvir Tushar

নাবালক থেকে সাবালক বা পুরুষ হবার জন্য কি কোন পরীক্ষা দিতে হয়?

...খুব-ই হাস্যকর প্রশ্ন, তাই না?

কিন্তু একটু সার্চ করলেই আপনি জানতে পারবেন, পৃথিবীর অনেক জায়গাতেই আগে এই পরীক্ষা চালু ছিল... বিশেষ করে আফ্রিকায় এর প্রচলন ছিল সবচেয়ে বেশী...

"পরীক্ষাটি খুব সোজা! বিষ পিপড়া'র আস্ত বাসার ভিতর এক হাত ঢুকিয়ে রাখতে হবে ২৪ ঘন্টা, রাখতে পারলে তারপর তাকে পুরুষ বলা হবে!!"

...আমি মনে করি আমাদের দেশে'ও এইরকম পরীক্ষার ব্যবস্থা করা প্রয়োজন।

- কে করবে?
- আমরাই করব :)

- পরীক্ষা কি হতে পারে?
...না ভাই, এত ভয়ানক কিছু না। সহজ একটা কাজ... জাস্ট "রক্ত দান করা" :)

আসুন, দলে দলে সবাই মেচিউরড হই :)

==================================

আমার এক ছোট ভাই Tanvir Tushar এর পোস্ট থেকে নেয়া :)

Facebook Link

{jcomments on}হয়ে উঠুন স্বনির্ভর...

By sHuvo WhtЄvR

মুমূর্ষু রোগীর রক্তের প্রয়োজনে অপরিসীম পরিশ্রম করি রক্তদাতা খুঁজে দেবার জন্য... তবে এর থেকে বেশি পরিশ্রম করি মানুষকে রক্তদানে সচেতন করে তোলার জন্যে... সবাই পরনির্ভরশীল হয়ে যাক -  এর জন্য তো আমরা কাজ করছি না... সবাই স্বনির্ভর হয়ে উঠবে, নিজের পরিচিত মানুষদের রক্তের গ্রুপ জেনে নিবে, প্রয়োজনে নিজের পরিচিত মানুষ থেকেই রক্তদাতা খুঁজে নিতে পারবে, এবং রক্তদানের ভয় দূর করে নিজেই রক্তদানে এগিয়ে আসবে - এটাই তো টার্গেট... দেশে বছরে প্রয়োজনীয় ৬ লাখ ব্যাগ রক্ত ম্যানেজ করতে পারবো না, কিন্তু রক্তদানে মানুষকে কিছুটা সচেতন এবং  স্বনির্ভর করে তোলার চেষ্টা তো অন্তত করতে পারবো...

"২ ব্যাগ 'বি পজেটিভ' বা 'এ পজেটিভ' বা 'ও পজেটিভ' রক্তের প্রয়োজন - রক্ত খুঁজে পাচ্ছি না.." - আমার মাথায় পিস্তল ঠেকিয়েও যদি আপনি আমাকে একথা বিশ্বাস করতে বলেন, তাতেও আমি বিশ্বাস করতে পারবো না...  আপনার বন্ধু বান্ধব, আত্মীয়স্বজন, পরিচিত এত মানুষের মধ্যে মাত্র ২ জন এই সহজলভ্য রক্ত বহনকারী নেই - এটা হতেই পারে না... পরিচিত মানুষের রক্তের গ্রুপ জেনে রাখার অভ্যাস করুন এবং পরিচিত মানুষের মাঝে আগে রক্তের খোঁজ করুন...
তাছাড়া, পরিচিত রক্তদাতা হলে আপনি সুনিশ্চিত হতে পারছেন রক্তটি বিশুদ্ধ কিনা... অপরিচিত রক্তদাতা মাদকাসক্ত কিনা হয়ত আপনি সহজেই সনাক্ত করতে পারবেন না।

নিজের পরিচিত মানুষদের রক্তের গ্রুপ জেনে নিন, জরুরী মুহূর্তে প্রিয়জনের জন্য রক্তদাতার অভাব হবে না...

(ক্যান্সার রোগী কিংবা থ্যালাসেমিয়া রোগীদের কেইস আলাদা... প্রচুর রক্তের প্রয়োজন হয়...)

Facebook Link

{jcomments on}“চাকরিটা ছেড়ে দে, তাহলে রক্ত নিয়ে আরো বেশি পরিসরে কাজ করতে পারবি... মানুষের উপকার হবে” :)

By sHuvo WhtЄvR

আমার দেখা পৃথিবীর সবচেয়ে সৎ মানুষ হল আমার বাবা (আমি বাবু বলে ডাকি)... উনার চাকরি ক্ষেত্রেও দেখেছি, পারিবারিক ক্ষেত্রেও দেখেছি...
ছোট বেলা থেকেই দেখে আসছি নিজের ক্ষুদ্র ক্ষমতা দিয়ে মানুষকে সাহায্য করার চেষ্টা... কিছুদিন আগে বাবু আমাকে একটা কথা বলল যা আমাকে আবেগাপ্লুত করেছিল...

ছোট থেকেই বাবুর কিছু কিছু ব্যাপার আমাকে বেশ অবাক করতো...

- ভর দুপুরে বাজার থেকে ফিরে রিকশাওয়ালা মামাকে বাসায় নিয়ে এসে ফ্যানের নিচে বসিয়ে শরবত আর বিস্কুট খাওয়াতো অনেক যত্ন করে... :)

- বাসায় ভাল কোন রান্না হলে রিকশাওয়ালা মামাকে বাসায় নিয়ে এসে একসাথে সবাই দুপুরের ভাত খেতাম :)

- রিকশায় চড়তে চড়তে যাচ্ছি, হঠাৎ কোন এক দোকানের সামনে রিকশাওয়ালাকে থামতে বলে... তারপর কোন কারন ছাড়াই রিকশাওয়ালা মামাকে গেঞ্জি, লুঙ্গি, গামছা কিনে দেয়... মামা হতবাক হয়ে তাকিয়ে থাকে... :)

- কোন ভিক্ষুককে রেস্টুরেন্টে নিয়ে গিয়ে পেট ভরিয়ে খাইয়ে দেয়া :)

- রাস্তায় কোন মানসিক ভারসাম্যহীন (প্রচলিত কথায় পাগল) দেখলে বাবু যেভাবেই হোক তার সাথে কথা বলবে... বাবুর ভাষায় “ওঁদের উপর সৃষ্টিকর্তার স্পেশাল দোয়া আছে... কিন্তু কোনো মানুষ ওঁদের সাথে সুন্দরভাবে কথা বলে না...” তাই বাবু গিয়ে গল্প জমানোর চেষ্টা করে... :)

- আমাকে সবচেয়ে বেশি নাড়া দেয় একটি ঘটনা... কোন বছর ঠিক মনে নেই... শৈত্য প্রবাহ চলছে, ভয়াবহ ঠাণ্ডা... বাবু রাতে চাদর মুরি দিয়ে বাইরে গেলেন কাজে, ফিরলেন ঠক ঠক করে কাপতে কাঁপতে... চাদর নেই গায়ে... এক অসহায় মানুষ নাকি খালি গায়ে এই শীতে ফুটপাথে শুয়ে কাঁপছিল... তাই সেই মানুষটির গায়ে চাদর বিছিয়ে দিয়ে বাবু কাঁপতে কাঁপতে বাসায় ফিরল :)

ছোট বেলা থেকেই এমন দেখে দেখে আমি বড় হয়েছি... সবসময় বাবুর মত হতে চেষ্টা করতাম... ভাবতাম বড় হয়ে যখন আমার অনেক টাকা হবে, আমি আরো অনেক বেশি সাহায্য করবো মানুষকে...
কিন্তু আমি আমার বাবুর মত এতটা হতে পারলাম না... এত কিছু করতেও পারলাম না... কিন্তু চেষ্টা করি প্রতিনিয়ত...

=============================
উপরের এত কিছু বললাম, নিচের কথাটির কারনে...
 
আমি অফিসে সারাদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করি, তারপর বাসায় এসে আবার রক্ত খুঁজতে বসে যাই... বিশ্রাম হয়না বলতে গেলে... তাছাড়া দিনের বেলা রক্তের অনেক রিকুয়েস্ট আসে যা আমি সবসময় দেখার সুযোগ পাই না... এই ব্যাপারগুলো বাবুর চোখ এড়ায়নি...

সেদিন ডেকে নিয়ে বাবু আমাকে বলল
“চাকরিটা ছেড়ে দে, তাহলে রক্ত নিয়ে আরো বেশি পরিসরে কাজ করতে পারবি... মানুষের উপকার হবে” :)

হয়তো আবেগ দিয়ে বলেছে, বাস্তবতাকে উপেক্ষা করে...
আমার উপর কতটা ভরসা করলে একজন বাবা তার সন্তানকে বলতে পারে চাকরি ছেড়ে দেবার জন্য... আমার এই রক্তদানের কাজকে কতটা ভালবেসেছে বাবু সেটা প্রকাশিত হল...
আমি লুকিয়ে শিশুর মত কেঁদেছিলাম সেদিন...

মুমূর্ষু রোগীর পাশে আজীবন থাকতে চাই, নিজের সর্বস্ব দিয়ে...


=====================

আমার মা-বাবার জন্য সবাই মন থেকে অনেক দোয়া করবেন...

Facebook Link

{jcomments on}সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি...

By sHuvo WhtЄvR

সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি...

দেড় বছর আগের ফেইসবুক, আর আজকের ফেইসবুকের মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য... এখন ফেইসবুক বাংলাদেশের রক্তের সমস্যা সমাধানের এক বড় মাধ্যম হয়েছে... মানুষের মাঝে সচেতনতা তৈরি হয়েছে, ভয় দূর হয়েছে...
১ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজনে ২ জন রক্তদাতা রাজি, তাই টস করে একজনকে পাঠিয়েছি... অন্যজন নারাজ :P এমনও হয়েছে...

স্বেচ্ছায় রক্তদানে রক্তদাতার ইচ্ছা শক্তি এখন প্রবল...

কিন্তু এর পাশাপাশি আমাদের অন্য দিকে দৃষ্টি দিতে হবে এখন ...

একজন রক্তদাতা স্বেচ্ছায় রক্তদান করছেন, বিনামূল্যে রক্তদান করছেন... এই রক্ত যা কৃত্রিমভাবে প্রস্তুত করা যায় না, তা আমরা রোগীকে দিচ্ছি ফ্রী বা বিনামূল্যে... কিন্তু রক্তদাতার এই রক্ত ক্রস ম্যাচিং এবং বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য হাসপাতাল/ক্লিনিক থেকে যে ফী রাখা হয়, সেটা কতটা ‘মানবতা’ বহন করে?
 

পয়েন্ট একঃ
----------------
একেক হাসপাতালে এই ফী একেক রকম... কোনো হাসপাতালে ক্রস ম্যাচিং এবং টেস্টের জন্য নেয়া হয় ৭০০ টাকা, এবং কোন কোন হাসপাতালে সেটা ৫০০০ টাকাও ছাড়িয়ে যায়... একই পরীক্ষাগুলো করা হচ্ছে এই হাসপাতালগুলোতে, তাহলে টাকা চার্জের পরিমানের এত তারতম্য হচ্ছে কেন? একই পরীক্ষা করার জন্য সব হাসপাতালের কাঁচামাল খরচ তো একই হবার কথা, একই না হলেও কাছাকাছি তো হবার কথা... তাই না?

তাছাড়া দেখা যাচ্ছে, বিভিন্ন জেলায় এই ফী এর পরিমান বিভিন্ন... ঢাকায় এক রকম, চট্টগ্রামে এক রকম, কুমিল্লায় এক রকম, সিলেটে এক রকম, খুলনায় আরেক রকম... এই তারতম্যের ব্যাপারটাও বোধগম্য নয়...  

পয়েন্ট দুইঃ
----------------
একজন রোগীকে এক ব্যাগ রক্তের জন্য গড়ে ধরে নিলাম ১০০০ টাকা খরচ হল, হাসপাতালে বেড খরচ আরো কমপক্ষে ১০০০ টাকা... এই এক ব্যাগ রক্তের জন্যই যদি একজন রোগীর ২০০০ টাকা খরচ হয়ে যায় (যেখানে একজন রক্তদাতা বিনামূল্যে স্বেচ্ছায় রক্তদান করে গেলেন), তাহলে একজন গরীব রোগী কিভাবে বাঁচবে? যে রোগীর প্রতি মাসে মাসে রক্ত লাগছে, কখনো ১ ব্যাগ, কখনোবা ৫ ব্যাগ... কেবল গরীব রোগী কেন, এক মধ্যবিত্ত পরিবারের পক্ষেও এটা বহন করা অনেকটা অসম্ভব...  

পয়েন্ট তিনঃ
----------------
রক্ত গ্রহনের এই ফী টা আরো কমিয়ে আনা জরুরী... আমি এমনও দেখেছি, একজন রোগীর ৫ ব্যাগ রক্তের দরকার, কিন্তু এই ৫ ব্যাগ গ্রহন করতে যে চার্জ তার ব্যয় বহন করা সম্ভব হয় না... তখন ২ ব্যাগ বা ৩ ব্যাগ রক্ত নিয়েই কোন রকমে অসুস্থ শরীর নিয়েই সময় পার করেন...  
কতটা দুঃখজনক...

পয়েন্ট চারঃ
----------------
রোগী মৃত্যুসজ্জায় থাকলেও এই ‘ফী’ কখনো ‘ফ্রী’ হয় না...

------------------------------------------------

হাসপাতাল/ ক্লিনিক/ ব্লাড ব্যাংক এই সব প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের সুনজর খুব প্রয়োজন... একজন রক্তদাতা যদি হাজারো ত্যাগ স্বীকার করে নিজের শরীরের মহামূল্যবান রক্ত নিঃস্বার্থভাবে দান করতে পারে, তাহলে আপনারা কেন একটু সুলভ মূল্যে এই মুমূর্ষু রোগীর পাশে থাকতে পারবেন না? লাভ না হয় একটু কমই হল... মানুষের পাশেই তো থাকা হল...

Facebook Link 1 | Facebook Link 2 | Facebook Link 3

{jcomments on}একটা কমন আফসোস সকল 'নতুন' রক্তদাতাদের মনে...

By sHuvo WhtЄvR

একটা কমন আফসোস সকল 'নতুন' রক্তদাতাদের মনে -
"আগে থেকে কেন রক্তদান করলাম না :( "

যারা এখনো রক্তদান করেননি, এক বিন্দু 'আফসোস'কে সাগরে পরিনত করার আগেই রক্তদান করে ফেলুন :)

Facebook Link 1 | Facebook Link 2

{jcomments on}ব্রাজিল নাকি আর্জেন্টিনা... ???

By sHuvo WhtЄvR

দেখি তো কোন দল জিতে... ব্রাজিল নাকি আর্জেন্টিনা... ???

যে দলের সাপোর্টারদের মধ্যে রক্তদাতার সংখ্যা বেশি, সেই দল জয়ী... বিশ্বকাপ শুরুর আগেই সেই দেশে কাপ পৌছায় দিয়ে আসবো... ;)

সুতরাং নিজের পছন্দের দলকে জয়ী করতে আজই রক্তদান করুন... ;)

===========================
নিচের লেখাটি অদৃশ্যমানঃ

চলতি ইস্যু খাইয়ে যদি কিছু এক্সট্রা রক্তদাতা পাওয়া যায়, এই আশায় এই পোস্ট :P

Facebook Link

{jcomments on}আমাদের একটাই পরিচয় "মানুষ", এবং একটাই আদর্শ "মনুষ্যত্ব"...

By sHuvo WhtЄvR

রক্তদাতা ভিন্ন ধর্মের হওয়ার কারনে রোগী তাঁর থেকে রক্ত গ্রহন করেননি... রক্তদাতাকে ফিরে আসতে হয়েছে... হ্যা, কিছুদিন আগের ঘটনা এটা...

এমন কেইসও পেয়েছি রক্তদাতা ভিন্ন ধর্মের রোগীকে রক্তদান করবেন না সোজা জানিয়ে দিলেন... আবার এমন কেইসও পেয়েছি, মহিলা রোগী কোনো পুরুষ রক্তদাতা থেকে রক্ত গ্রহন করবে না... এমন মানুষও পেয়েছি যে কিনা ভিন্ন দেশে আছে বলে রক্তদান করবে না কারন নিজের দেশের মানুষকে রক্তদান করতে চায়... ভিন্ন রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গির কারনেও রক্তদাতা রক্তদানে যেতে চায় না বা রোগী রক্ত গ্রহন করতে চায় না...

এর নাম কি মানবতা? উপরে উল্লেখিত মানুষগুলোর জন্য এই পোস্ট...
------------------ ------------------ ------------------ ------------------

'ক' এর রক্তের প্রয়োজনে রক্তদান করেছে 'খ'
'খ' এর রক্তের প্রয়োজনে রক্তদান করেছে 'গ'
'গ' এর রক্তের প্রয়োজনে রক্তদান করেছে 'ঘ'
'ঘ' এর রক্তের প্রয়োজনে রক্তদান করেছে 'ক'

এবার বলুন তো কোন রক্তদাতা
- কোন ধর্মের অনুসারী?
- কোন বর্ণ, গোত্রের?
- কোন রাজনৈতিক দলের পৃষ্ঠপোষক?
- কে ধনী বা কে গরীব?
- কিংবা কি তাঁদের জাতীয় পরিচয়?

উত্তর আমার জানা নেই, আপনারও জানা নেই... কারন উপরের সকলের একটাই পরিচয় "রক্তদাতা", সর্বোপরি 'মানুষ'...

পৃথিবীর সকল মানুষের রক্ত লাল। ধর্ম, বর্ণ, আদর্শ, রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি সবকিছু নির্বিশেষে একটাই পরিচয় “আমরা মানুষ”। যখন জরুরী রক্তের দরকার পরে তখন সেই মানুষটি কোন ধর্মাবলম্বী, কোন গোষ্ঠীর, কোন রাজনৈতিক দলের সাপোর্টার, ধনী নাকি গরীব - এইটা সম্পূর্ণ গৌণ বিষয়। তখন শুধু একটা বিষয়ই মুখ্য “এই মানুষটাকে বাঁচাতে হবে। নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা দিয়ে মানুষটাকে বাঁচাতে হবে।”।

এমন জরুরী মুহূর্তেও আপনার কাছে যদি ধর্ম, বর্ণ কিংবা রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি মুখ্য হয়ে দাঁড়ায়, তাহলে আপনার “মনুষ্যত্ব” নিয়ে আমার বিরাট সন্দেহ রয়েছে...

================================
আমাদের একটাই পরিচয় "মানুষ", এবং একটাই আদর্শ "মনুষ্যত্ব"...

Facebook Link 1 | Facebook Link 2 | Facebook link 3 | Facebook Link 4

{jcomments on}"ইদানিং বন্ধুদের নতুন শর্ত দেই..."

By sHuvo WhtЄvR

ইদানিং বন্ধুদের নতুন শর্ত দেই

"যদি কোন নেগেটিভ রক্ত গ্রুপের রক্তদাতার সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে পারিস তাহলে তোর এই কাজ (আমাকে ইতিমধ্যে অনুরোধ করা হয়েছে এমন কোন কাজ) করে দিবো... পাক্কা..." ;)

এবং বুদ্ধিটা ভালই কাজে দিচ্ছে ;)

Facebook Link

{jcomments on}"চারপাশে শুধু 'মানুষ' দেখি, অমানুষ নয়..."

By sHuvo WhtЄvR

চারিদিকে শুনি, "মানুষ নাকি অমানুষ হয়ে গেছে, নিজের স্বার্থ ছাড়া কেউ কিছু বুঝে না, অন্যের উপর বিপদ চাপিয়ে দিয়ে নিজে ভাল থাকলেই নাকি হল।"

তবে এক্ষেত্রে আমি অত্যন্ত ভাগ্যবান। আমি চারপাশে শুধু 'মানুষ' দেখি যারা কিনা নিজের সব কিছু ত্যাগ করতে প্রস্তুত অন্যের জন্যে, 'অমানুষ' দেখি না । দেশে যে প্রতিটি মানুষের ভেতরে একজন 'অসাধারন ভাল' মানুষ লুকিয়ে আছে, এটা আমার কাছে নতুন নতুন উদাহরন আকারে ফিরে আসে। রক্তদাতারাই হলেন আমার চোখে দৃশ্যমান উদাহরন।

একজন রক্তদাতা নিজের মূল্যবান সময়, মোবাইল খরচ, যাতায়াত কষ্ট ইত্যাদি ত্যাগ স্বীকার করে নিজের শরীরের মহামূল্যবান রক্ত নিঃস্বার্থভাবে দান করে আসে একজন রোগীকে, বিনিময়ে কিছু পাবার আশায় নয়, মনুষ্যত্ববোধ থেকেই এই আত্মত্যাগের উৎপত্তি...

টাকা, গাড়ি, বাড়ি আর ক্ষমতার প্রতিযোগিতার বিলুপ্ত হোক, শুরু হোক নতুন প্রতিযোগিতা... ভাল কাজের প্রতিযোগিতা... তবে এই প্রতিযোগিতায় রক্তদাতারা সবসময় এগিয়ে থাকবেন :) নিশ্চিত :)

Facebook Link

{jcomments on}"বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস (৮ই মে, ২০১৪)"

By sHuvo WhtЄvR

... "আজ বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস" ...
(সচেতনতা বৃদ্ধিতে পোস্টটি শেয়ার করার অনুরোধ করছি)

থ্যালাসেমিয়া কি?
এই রোগে আক্রান্ত ব্যাক্তির রক্তে হিমোগ্লোবিন তৈরির হার কমে যায় আশংকাজনক হারে, উপযুক্ত পরিমাণে রক্তকণিকা তৈরি হয় না...আক্রান্তের দেহে লোহিত রক্তকণিকার পরিমাণ কমে, সাথে কমে যায় লোহিত কণিকার আয়ুও... ত্রুটিপূর্ণ হিমোগ্লোবিনের কারনে রক্তকনিকা বেশিদিন বাচতে পারে না, রক্তকনিকা ভেঙে যায়... ফলে দেখা দেয় মারাত্মক রক্ত শুন্যতা...

প্রতিকারঃ
এই রোগের সম্পূর্ণ প্রতিকার আজও আবিষ্কৃত হয়নি... চিকিৎসা হিসেবে রোগীকে আজীবন নিয়মিত রক্ত গ্রহণ, ব্যয়বহুল ওষুধ এবং ইঞ্জেকশান এর উপর নির্ভর করে বেঁচে থাকতে হয়। অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন (Bone Marrow Transplantation) এর মাধ্যমে এই রোগ সারিয়ে তোলা সম্ভব, কিন্তু তা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ, ব্যয়বহুল এবং বাংলাদেশে করা সম্ভব নয়।

প্রতিরোধঃ
থ্যালাসেমিয়া বংশানুক্রমে পাওয়া রক্তের একটি রোগ...
যদি দুইজন বাহক বিয়ে করে, তাদের বাচ্চার থ্যালাসেমিয়ার সম্ভবনা রয়েছে ২৫% ...
আর যদি একজন বাহক একজন সুস্থ কাউকে বিয়ে করে তাইলে বাচ্চা থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা অতি নগণ্য, বাচ্চা সর্বোচ্চ বাহক হতে পারে...

*** বিয়ের আগে হবু স্বামী-স্ত্রীর "থ্যালাসেমিয়া সনাক্তকরণ পরীক্ষা" করিয়ে নেয়া জরুরী... এই পরীক্ষাটির নাম "হিমোগ্লোবিন ইলেকট্রোফোরেসিস"

রক্ত সংগ্রহঃ
থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত রোগীদের প্রতি মাসে অন্যের রক্ত নিয়ে বেঁচে থাকতে হয়... প্রতিমাসে কমপক্ষে ১ ব্যাগ রক্ত প্রয়োজন হতে পারে...

থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত রোগীর পরিবার এবং আত্মীয়স্বজনদের জন্য ছোট টিপসঃ
--- প্রতিমাসে যদি ১ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন হয় তাহলে কমপক্ষে ৪ জন "নিয়মিত রক্তদাতা"দের সাথে যোগাযোগ রাখুন... ধরুন, প্রথম মাসে একজন রক্তদাতা রক্তদান করলেন, দ্বিতীয় মাসে দ্বিতীয় রক্তদাতা, তৃতীয় মাসে তৃতীয় রক্তদাতা এবং চতুর্থ মাসে আবার ***প্রথম রক্তদাতা রক্তদান করতে পারবেন... এভাবে চলতে থাকবে... (চতুর্থ রক্তদাতা রিজার্ভ হিসাবে থাকবেন... অন্য রক্তদাতা কোন কারনে রক্তদান করতে না পারলে চতুর্থ রক্তদাতা রক্তদান করবেন)

=================================
এই পোস্টটি লেখার সবচেয়ে বড় কারন হল নিচের ম্যাসেজটি সবাইকে জানানোঃ

"সবারই বিয়ের আগে "হিমোগ্লোবিন ইলেকট্রোফোরেসিস" করা উচিত, থ্যালাসেমিয়া রোগের বাহক কিনা জেনে নেয়া খুব জরুরী...... এটি একটি জেনেটিক রোগ, সে কারণে এই রোগ প্রতিকার না করে প্রতিরোধ করতে হয়..."

আমাদের অজ্ঞতার জন্য আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যেন থ্যালাসেমিয়া নামক রক্তশূন্যতার এই মারাত্মক রোগটি নিয়ে পৃথিবীতে না আসে... আসুন নিশ্চিত করি...

Facebook Link

{jcomments on}"রানা প্লাজা ট্র্যাজেডিতে এগিয়ে আসা সকল রক্তযোদ্ধাদের স্যালুট... "

By sHuvo WhtЄvR

"রানা প্লাজা ট্র্যাজেডিতে এগিয়ে আসা সকল রক্তযোদ্ধাদের স্যালুট... "

প্রয়োজনের তুলনায় কয়েকশ ব্যাগ রক্ত বেশি যোগার হয়েছিল... পরবর্তীতে অন্য রোগীদের রক্ত সরবরাহ করা হয়েছিল... বিভিন্ন জেলা থেকে রক্তদাতা এসে রক্তদান করে গিয়েছিলেন সাভারে আহত মানুষদের জন্য...

আমরা 'এক' হলে যেকোন দুর্যোগ মোকাবেলা করতে পারি... সব...

Facebook Link

{jcomments on}গানের নামঃ রক্ত দিন জীবন বাঁচান

By sHuvo WhtЄvR

গানের নামঃ রক্ত দিন জীবন বাঁচান

লিরিক, টিউন, ভোকালঃ sHuvo WhtЄvR
মিউজিক, মিক্সিং, মাস্টারিং: Naved Parvez
সার্বিক সহযোগিতায়ঃ Pauline Khan
----------------------------------------------------------
MP3 ডাউনলোড করতে হলে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন।
www.donatebloodbd.com/Rokto_Din_Jibon_Bachan_(sHuvo_Whtevr).mp3
----------------------------------------------------------

নোটঃ রক্তদানে মানুষকে সচেতন করাই এখন আমাদের প্রথম এবং প্রধান চ্যালেঞ্জ। সবাই যখন রক্তদানের সকল ভয় দূর করে নিজের দায়িত্ববোধ থেকে রক্তদানে এগিয়ে আসবে তখন মুমূর্ষু রোগীর জন্য রক্তের আর অভাব হবে না আমি বিশ্বাস করি। রক্তদানে সচেতনতা বৃদ্ধিতে সবসময় কাজ করে যাচ্ছি। এই গানটি আমার তেমন একটি প্রয়াস...আমি ভাল গাইতে পারি না, কিন্তু চেষ্টার কোন ত্রুটি ছিল না :)

এই গানটি শুনে যদি কিছু মানুষও রক্তদানে উদ্বুদ্ধ হয় তাহলেই সার্থকতা :)
হ্যাপি ব্লাড ডোনেটিং...

Facebook Link

{jcomments on}চলবে তো রক্তদানের কাজ অনন্তকাল? কথা দিচ্ছেন তো?

By sHuvo WhtЄvR

"

চলে যাচ্ছি দোস্ত ! একদম নেটওয়ার্কের বাইরে !!
- সাব্বির হাসান

দূরে চলে যাচ্ছি অনেক দূরে — feeling বুঝতেছিনা.
- Valo Sadhu Evan (একুশ)
---------------------------------

একটা বিষণ্ণ রাত পার করলাম... কেমন যেন এক অনিশ্চয়তা ভর করেছিল... তাই সকালের সূর্যটা আজ যেন একটু বেশিই উজ্জ্বল... অন্ধকার ভেঙ্গে আলোর উপস্থিতি...

যেকোন সময় যেকোন কিছু ঘটে যাওয়া একটা বাস্তবতা ছাড়া আর কিছুই নয়...

"
রক্তদানের কাজ চলছে, আগামীতেও চলবে, আজকের থেকে যেন হাজার গুন বেশি হয়ে... মুমূর্ষু রোগীর রক্তের অভাব হবে না কখনো... রক্তদাতার সংখ্যা হবে রোগীর সংখ্যা থেকে বেশি... একজন রোগীর এক ব্যাগ রক্তের প্রয়োজনে ৩ জন রক্তদাতা উপস্থিত থাকবে... থাকবে না কোন অনিশ্চয়তা...
"

কথা দিচ্ছেন তো সবাই? চলবে তো রক্তদানের কাজ অনন্তকাল? কথা দিচ্ছেন তো?

-------------- --------------- -------------- ---------------
হয়তো আমি থাকবো না... আমার টাইমলাইনে রক্তদানের পোস্টগুলো থাকবে... প্লিজ খেয়াল রাখবেন ওদের :)

— feeling বিষণ্ণ...

-------------- --------------- -------------- ---------------
আপডেটঃ রাত ৯ টা

- সবার কমেন্ট পড়ে অনেক নিশ্চিন্ত বোধ করছি এখন :) মুমূর্ষু রোগীর পাশে সবসময় আছি, থাকবো... এক শুভ হারিয়ে গেলেও রক্তদানের কাজের কোন সমাপ্তি হবে না... মুমূর্ষু রোগীর রক্তের অভাব আমরা হতে দিবো না... বাংলাদেশের মাটিতে আর একজন মুমূর্ষু রোগীও রক্তের অভাবে মারা যাবে না ইনশাআল্লাহ্‌...

Facebook Link

{jcomments on}"সুপার ডোনার" কারা?

By sHuvo WhtЄvR

"

"কে না চায় সুপার ডোনার হতে :) বের হয়ে গেলুম ভাই :)"

তখন রাত ১২ টা ছুই ছুই... ক্যান্সার রোগীর জন্য হঠাৎ খুব জরুরী ও+ রক্তের প্রয়োজন হয়... নক দিলাম ও+ রক্তদাতা  Mohammad Ali ভাইকে... বললাম "এখনি একজন 'সুপার ডোনার' দরকার... রোগীর অবস্থা খারাপ"

আর কিছু জানার দরকার মনে করলেন না আলী ভাই... বললেন "কে না চায় সুপার ডোনার হতে :) বের হয়ে গেলুম ভাই :) "

"সুপার ডোনার" রা আমার হৃদয়ের এক বিশেষ স্থান দখল করে আছে... আমার মনের গভীরের সবচেয়ে শ্রদ্ধার স্থানে আমি তুলে রেখেছি তাদের :)

--------------------------------------
"সুপার ডোনার" কারা?
যে রক্তদাতা গভীর রাতেও রক্তদান করতে প্রস্তুত তিনিই হলেন আমাদের "সুপার ডোনার"... হোক না সেটা রাত ১২ টা, কিংবা হোক না সেটা রাত ৩টা - "সুপার ডোনার" সবসময় প্রস্তুত রক্তদানের জন্য... :) মাঝ রাতেও... আর দিনে তো অবশ্যই... ২৪ ঘন্টাই  :)

এমন "সুপার ডোনার" থাকলে এই রাত-দুপুরে মুমূর্ষু রোগীকে নিয়ে দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই, কারন রাত যতই হোক না কেন এই "সুপার ডোনার"রা তো রেডি আছেন সময়মত হাসপাতালে পৌঁছে যাবার জন্য :)

পৃথিবীর সকল "সুপার ডোনার"দের স্যালুট যারা মধ্যরাতেও থাকেন মুমূর্ষু রোগীর সাথে, যখন অন্যরা ঘুমায় কোলবালিশের পাশে :)

Facebook Link

{jcomments on}শুভ নববর্ষ - প্রতিটি উৎসবই হোক মানবতার কল্যাণে...

By sHuvo WhtЄvR

"
এসো হে রক্তদাতা, এসো এসো...
মুমূর্ষুর পাশে দাঁড়ায়ে, রোগ শোক দাও উড়ায়ে
উৎসবের আনন্দ রোগীর মুখে ছড়িয়ে যাক যাক যাক এসো এসো...
এসো হে রক্তদাতা, এসো এসো...
"

রক্তদানের মাধ্যমে উদযাপন করুন আজকের এই দিন... আজ যেকোন অবস্থায়, যেকোন পরিস্থিতিতে মুমূর্ষু রোগীর পাশে থাকুন... উৎসবের আনন্দ ছড়িয়ে যাক সকল প্রানে :)

"প্রতিটি উৎসবই হোক মানবতার কল্যাণে... "

সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা :)
Facebook Link

{jcomments on}ভাল কাজ প্রকাশ পাক, অন্যরা অনুপ্রাণিত হোক...

By sHuvo WhtЄvR

অনেকে আমাকে বলেন "রক্তদানের কাজ প্রকাশ্যে করার কোন মানে নাই... ভাল কাজ নিভৃতে করতে হয়..."

আমার কথা কিছুটা ভিন্ন...
"
আপনাকে দেখে অন্যরা অনুপ্রাণিত হবে... আমরা খারাপ কাজ প্রকাশ্যে করি নির্লজ্জের মত, তবে ভাল কাজ কেন নিভৃতে করতে হবে? ভাল কাজকে যদি আমরা ভাল ভাবে তুলে না ধরি, তাহলে নতুন রক্তদাতা আসবে কোথা থেকে? নতুনদের উৎসাহিত কে করবে?
"

ভাল কাজ প্রকাশ পাক, অন্যরা অনুপ্রাণিত হোক... এতে ভাল কাজের পথ সবার কাছে দৃশ্যমান হবে...

Facebook Link

{jcomments on}রোগীর সংখ্যার তুলনায় রক্তদাতার সংখ্যা বেশি

By sHuvo WhtЄvR

একদিন বাংলাদেশে রোগীর সংখ্যার তুলনায় রক্তদাতার সংখ্যা বেশি হবে, হবেই :)

(দেড় বছরে যে পরিবর্তন আমি দেখেছি, এই স্বপ্নপুরন হতে খুব বেশি সময় লাগবে না... ইনশাআল্লাহ্‌)

Facebook Link 1 | Facebook Link 2 | Facebook Link 3 | Facebook Link 4

{jcomments on}লটারীর টিকেট কিনবো... ৩০ লক্ষ টাকা জিতবো

By sHuvo WhtЄvR

বড় বড় কোম্পানিগুলো হাজারো কাজে বড় অংকের টাকা ইনভেস্ট করতে প্রস্তুত, কিন্তু রক্তদানে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কিছু করতে বললেই "একদম চুপ" হয়ে যায়...

কিছুটা আক্ষেপ নিয়েই বললাম... চেষ্টা তো আর কম করলাম না... রক্তদান ব্যাপারটা এখনো উপেক্ষিত... কারন এটা দিয়ে তো ব্যবসা হবে না...

লটারীর টিকেট কিনবো কালকে... ৩০ লক্ষ টাকা জিতবো... রক্তদানের কাজ কোথায় নিয়ে যেতে হবে আমার লক্ষ্য স্থির আছে...

ক্রীড়া উন্নয়নের লটারীর টিকেট কি এখনো বিক্রি করে?

Facebook Link

{jcomments on}কিছু কিছু রোগীর এবং রক্তদাতার সাইকোলজি নিয়ে PhD

By sHuvo WhtЄvR

কিছু কিছু রোগীর এবং কিছু কিছু রক্তদাতার সাইকোলজি বোঝার জন্য আমার "সাইকোলজিতে PhD" করা খুব জরুরী...

রোগীদের কথাই ধরি... এখন বলল "ভাই, এখনি রক্ত দরকার... এখনি"... মাথা নষ্ট করে তাড়াতাড়ি রক্তদাতা খুঁজে বের করলাম, তারপর কল দিলাম আবার রোগীকে... তখন বলে "ভাই, রক্ত নাকি লাগবে না, পরে দরকার হলে আপনাকে জানাবো..."

এমন আরো বহু কষ্ট পোহাতে হয় আমাকে কিংবা রক্তদাতাদের... এটা নিয়ে অনেক পোস্ট দিয়েছি... কমেন্টে  লিঙ্ক দিলাম...

এখন মেইন টপিকে আসি...  কিছুদিন আগের কাহিনী বলিঃ

একজন রক্তদাতাকে রক্তের প্রয়োজনে নক দিলাম...

আমিঃ "ভাই, বিকাল ৪ টার সময় এক রোগীর রক্তের প্রয়োজন... আপনি পারবেন?"
রক্তদাতাঃ  না ভাই, আমার ৫ টা পর্যন্ত ক্লাস...
আমিঃ আচ্ছা... আরেকজন রোগীর জন্য ৬ টার সময় রক্ত লাগবে... পারবেন?
রক্তদাতাঃ না ভাই... ক্লাস শেষে এত তাড়াতাড়ি পৌছাতে পারবো না...
আমিঃ আচ্ছা... রাত ৯ টার দিকে আরেকজন রোগীর রক্তের প্রয়োজন... রাতে পারবেন?

এরপর আমাকে ব্লক করে দেয়া হল... :\

--------
হু রক্তদাতাদের সাইকোলজি বুঝতে হলেও PhD করা অবশ্যম্ভাবী...

Facebook Link 1 | Facebook Link 2

{jcomments on} রক্তদানে প্রতিযোগিতা...

By sHuvo WhtЄvR

আমার এক ছোট ভাই বেশ কিছুদিন ধরেই রোগী খুঁজে দেবার জন্য আমাকে বলছে কিন্তু ওর এলাকায় রক্তের কোন রিকুয়েস্ট পাচ্ছিলাম না... আর এইদিকে পোলাটা পাগল হয়ে গেসে রক্তদানের জন্য...

যাইহোক, গতকাল হঠাৎ করে ম্যাসেজ দিলো "শুভ ভাই, রক্তদান কইরা ফেলসি :D "
সে তো মহাখুশি...বললাম "রক্তদানের জন্য তোর মত পাগল আরও অনেক দরকার... :) "

তার উত্তর
"
ভাই, শুধু আমি পাগল না...আমাদের এখানে আমরা কয়েকজন বন্ধুই রক্ত দেয়ার জন্য পাগল...আমরা এই বিষয়ে অলরেড়ি ঝগড়া করি... আমরা রোগী পেলে অন্যজনকে না জানায়ে লুকাই লুকাই যাই রক্ত দিয়ে আসি... রক্তদান শেষে বন্ধুদের কল দেই আর নাচি :v
"

*** কি যুগ আসলো, মানুষ এখন কার আগে কে রক্তদান করবে এটা নিয়ে প্রতিযোগিতা করে :O

==========================

Ashraf Vs Mashuk, অনেক ভাল লাগলো তোর এই কথাটা শুনে... আমরা আমাদের স্বপ্ন পুরনের পথেই আছি :) পরিবর্তন এসেছে, আরও আসছে, নিশ্চিত :)

Facebook Link

{jcomments on} রক্তদান হবে বিনামূল্যে এবং নিঃস্বার্থভাবে...

By sHuvo WhtЄvR

একজন রোগীর কাছে আমি কতটুকু লজ্জিত হয়েছি, তা লিখে বুঝানোর ভাষা আমার জানা নেই...
========================

কিছুদিন আগে এক ক্যান্সার রোগীর জন্য দুর্লভ "ও নেগেটিভ" রক্তের প্রয়োজন ছিল... একজন রক্তদাতাও খুঁজে পেয়েছি... রোগীর সাথে রক্তদাতার পরিচয় করিয়ে দিলাম এবং রক্তদাতাকে জানানো হল ২/৩ দিনের মধ্যেই রক্তের প্রয়োজন হবে, তখন উনাকে আবার জানানো হবে... নেগেটিভ রক্তদাতা ম্যানেজ হয়েছে, এর থেকে আনন্দের আর কিছু হতে পারে না... :) রোগীদের জানালাম যেন আমাকে পরে আপডেট জানায়...

২ দিন আগে রোগী আমাকে জানালেন যে, সেই রক্তদাতা নাকি এই ১ ব্যাগ রক্তের বিনিময়ে বড় অংকের টাকা চাইছে... এমন কিছু হতে পারে, তাও আমার ফ্রেন্ড লিস্টের কোন রক্তদাতা, আমার কল্পনাতেও ছিল না...

========================
সেই রক্তদাতাকে নক করলাম... উনার সাথে কথোপকথনটা তুলে ধরলামঃ-

আমিঃ ভাই, এটা আমি কি শুনলাম? আপনি নাকি রক্তের বিনিময়ে রোগী থেকে "__এত__" টাকা চেয়েছেন? ঠিক নাকি?

রক্তদাতাঃ ধুর...

আমিঃ তার মানে আপনি টাকা চাননি, তাই না?

রক্তদাতাঃ চাইসি... তবে এত টাকা চাইনি...

আমিঃ রক্তদান হবে বিনামূল্যে এবং স্বেচ্ছায়... রক্তের ঋণ টাকার বিনিময়ে শোধ করা যায় না... আপনি টাকা চেয়ে ভুল করেছেন যে এটা আপনি বুঝতে পারছেন তো? :)

রক্তদাতাঃ হু...

আমিঃ আমি কতটা লজ্জিত হয়েছি রোগীর কাছে আপনি হয়তো বুঝতে পারবেন না... এমন হলে আমি আপনাকে রক্তদানের জন্য বলতাম না :)
আপনি যদি বিনামূল্যে রক্তদান করতে ইচ্ছুক হোন আমাকে জানাবেন...

রক্তদাতাঃ লজ্জা ঈমানের অঙ্গ... লজ্জা পাওয়া দোষের কিছু না...

আমিঃ এই ঈমানের অঙ্গ আপনার আছে তো?

রক্তদাতাঃ  হু আছে...

আমিঃ শুনে ভাল লাগলো...ভাল থাকুন...
========================

একজন "নেগেটিভ" রক্তদাতা আমি হারাতে চাই না, এমন রক্তদাতা সুন্দরের পথে ফিরে আসুক এটা চাই... কোন তিরস্কার নয়, কোন কটু কথা নয় - সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে রক্তদানের এই সুন্দর পথে উনাকে ফিরাতে চাই...

প্রিয় "এই রক্তদাতা", আশা করি আপনি এই পোস্টটি দেখছেন... বিনামূল্যে এবং স্বেচ্ছায় রক্তদানের সংগ্রামে আমাদের সাথে শরিক হোন...

রক্তদান এমন একটি মহৎ কাজ যা অর্থ নিয়ে মূল্যায়ন করা যায় না।

Facebook Link 1 | Facebook Link 2 | Facebook Link 3

{jcomments on} রিয়েল হ্যাপিনেস...

By sHuvo WhtЄvR

রিয়েল হ্যাপিনেস ইজঃ
"
রং নাম্বারে কল করে রক্তদাতা রাজি ;)
"

----------------------
রক্তদাতাকে কল দেয়ার সময় একটা ডিজিট ভুল লিখেছিলাম... যিনি রিসিভ করলেন তিনিও "বি পজেটিভ", এবং রক্তদানেও রাজি :)

Facebook Link 1 | Faceboom Link 2

{jcomments on} রাসেল আহমেদ ভাইয়ের প্রতি শ্রদ্ধা...

By sHuvo WhtЄvR

উত্তরা থেকে ঢাকা মেডিক্যাল অনেক দূর?

যাত্রাবাড়ী থেকে মিরপুর অনেক দূর?

গুলশান থেকে শ্যামলীও অনেক দূর?

ভাই থামেন!!! ইচ্ছা শক্তির কাছে কোন দূরত্বই আসলে দূর নয়... অনেক উদাহরন আমার চোখের সামনেই আছে... আজকে একটি উদাহরন দিচ্ছি...

===============================
হবিগঞ্জ সদরে থাকেন রাসেল আহমেদ ভাই... বেশ কিছুদিন আগে জানতে পারি উনার রক্তের গ্রুপ হচ্ছে "এবি নেগেটিভ"... হু, সবচেয়ে দুর্লভ রক্ত... আমি জিজ্ঞেস করেছিলাম "ভাই, হবিগঞ্জে রক্তের রিকুয়েস্ট খুব কম পাই... যদি সিলেট শহরে রক্তের প্রয়োজন হয় তাহলে কি আপনি কিছু করতে পারবেন? দুর্লভ রক্ত তো, তাই বলছি..."
রাসেল ভাই বললেন "আমাকে অবশ্যই জানাবেন"...  :)

রাসেল ভাই আজ হবিগঞ্জ থেকে সিলেটে গিয়ে রক্তদান করে এসেছেন একজন ক্যান্সার রোগীকে... :)

শুধু তাই নয়, তিনি এর আগেও তিন বার ঢাকায় এসে রক্তদান করেছেন, এবং সিলেটে আগেও একবার রক্তদান করেছিলেন... হ্যাঁ, হবিগঞ্জ থেকে গিয়ে :)
===============================

আর একই শহরের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে মুমূর্ষু রোগীর জন্য রক্তদানে যেতে আপনার কি খুব কষ্ট হয়ে যায়? তাও তিন মাসে মাত্র একদিন...
উত্তরটা আপনার নিজের কাছেই আছে :)

হ্যাপি ব্লাড ডোনেটিং :)

Facebook Link

{jcomments on} আমার একটা আফসোস এখনো রয়েই গেল

By sHuvo WhtЄvR

প্রায় ১ বছর ৯ মাস আগে যখন সংগ্রামে নেমেছিলাম, তখন অনেকগুলো স্বপ্নের মধ্যে আমার ২টা স্বপ্নও ছিল-

১. মানুষ রক্তদান শেষ করেই গর্বে বুক ফুলিয়ে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিবে এবং সেই স্ট্যাটাসে থাকবে শত মানুষের "শুভেচ্ছা বার্তা" (আমার এই স্বপ্ন ইতিমধ্যেই পুরন হয়েছে :) )

২. মানুষের প্রোফাইল পিকে থাকবে নিজের রক্তদানের ছবি :)
(রক্তদানের ছবিতে এখন আমার হোম পেইজ পূর্ণ থাকে... সুতরাং এই স্বপ্নও পূর্ণ হয়েছে :) )

==============================

তবে আমার একটা আফসোস এখনো রয়েই গেল...

আমি যখন বাসে থাকি, তখন প্রায় সময়ই খুব জরুরী রক্তের রিকুয়েস্ট আসে। এমনও সময় গেছে যখন আমি বাসে ঝুলতে ঝুলতে রক্তদাতাদের সাথে কথা বলছি "ভাই, রোগীর অবস্থা ভালো না। ১-২ ঘন্টার মধ্যেই রক্ত লাগবে।"

এই অবস্থাতে বাসের সব যাত্রী হা করে তাকায় থাকে, কেউ কেউ আবার একটু লুকায় লুকায় তাকায়। কিন্তু এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত কেউ বলল না "ভাই, আর রক্তদাতা খুইজেন না। আমিই রক্ত দিবো।" এখনো এমন ঘটেনি।

এমন ঘটনা সত্যি যেদিন ঘটবে, আমার অনেকগুলো স্বপ্নের মধ্যে আরেকটিরও বাস্তবায়ন ঘটবে :)

Facebook Link | Facebook Link 2

{jcomments on} "ওয়েলকম টিউন দিয়ে মানুষ যাচাই করা যায় না..."

By sHuvo WhtЄvR

ওয়েলকাম টিউনে সেট করা "আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফ্রেবুয়ারী" গান...

কিন্তু রক্তদান করবে কনফার্ম করেও এই রক্তদাতা এখন আমার ফোন রিসিভ করছে না... কেটে দিচ্ছে... টেক্সট করলাম... রিপ্লাই নাই... লাস্ট ১ ঘন্টা ধরে এমন চলছে... রক্ত দিতে না পারলে অন্তত জানিয়ে দেয়া উচিত...

"ওয়েলকম টিউন দিয়ে মানুষ যাচাই করা যায় না..."
(প্রমানিত)

Facebook Link

{jcomments on} কিছু "ভুল", তাহার উপর হালকা "মিসটেইক"

By sHuvo WhtЄvR

... (আমার জীবন থেকে নেয়া... কাহিনী সত্য...)

১)
বাথরুমের "ব্লাড"টা নষ্ট হয়ে গেছে... থুক্কু "বাল্ব" :\

২)
এই কোর্সে আমি "বি পজেটিভ" পেয়েছি... ... থুক্কু "বি প্লাস" :\

৩)
বাসের মামাকে বলি "কিছুক্ষণ আগেই তো রক্ত দিলাম... আবার চাও ক্যান?" থুক্কু টাকা :\

এমন আরও অনেক ঘটনাই ঘটেছে, এখন মনে পড়ছে না... পরে মনে হলে বলবো...
===========================================

আজকে এক ভাইকে জিজ্ঞেস করলাম "আপনার রক্তের গ্রুপ কি?"
উত্তর পেলামঃ "ধনাত্মক বি" :\

এমন আরো বিভিন্ন রক্তের গ্রুপের সাথে আমি পরিচিত... যেমনঃ

- বি প্লাস
- গরুর রক্ত
---------------------
- গোল্ডেন এ প্লাস
- জিপিএ ৫

ইত্যাদি ইত্যাদি :\

Facebook Link

রক্ত দিন, জীবন বাঁচান (থিম সং)

Join Us on Facebook

We have 96 guests and no members online

রক্তদাতা হিসাবে রেজিস্ট্রেশন করুন